শনিবার , এপ্রিল ১৩ ২০২৪
শিরোনাম
Home / বিনোদন-সংস্কৃতি / মিডিয়া জুড়ে শোকের মাতম… চলে গেলেন ভারতীয় অভিনেতা ইরফান খান

মিডিয়া জুড়ে শোকের মাতম… চলে গেলেন ভারতীয় অভিনেতা ইরফান খান

অনন্যা অর্পিতা।
চট্টবাংলা বিনোদন ডেস্ক-ঃ
মাত্র চার দিন আগে জয়পুরে মাকে হারানোর পর অগনিত ভক্তদের চোখের জলে ভাসিয়ে আজ নিজেও চলে গেলেন নাফেরার দেশে ভারতীয় অভিনেতা ইরফান খান।
গতকালই ভর্তি হয়েছিলেন হাসপাতালে। আর আজ বুধবার (২৯ এপ্রিল) সকালে হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন মাত্র ৫৩ বছর বয়সে।
লকডাউনের কারণে সেদিন জয়পুরে পৌঁছাতে পারেননি ইরফান। তবে বেশ কিছু সংবাদমাধ্যমের দাবি, অসুস্থতার জন্যই মায়ের শেষকৃত্যে যেতে পারেননি অভিনেতা। ব্রেনে টিউমার নিয়ে বেশ কয়েক বছর ধরে লড়াই করছিলেন তিনি। সুস্থ হয়ে ‘আংরেজি মিডিয়াম’ ছবির মধ্যে দিয়ে আবারো ফিরেছিলেন চলচ্চিত্র জগতে। কিন্তু আবারও অসুস্থ হয়ে ভর্তি হয়ে হাসপাতালেই তাঁর মৃত্যু হয়।
ইরফান খান, ১৯৬৭ সালের ৭ জানুয়ারি ভারতের জয়পুরে একটি মুসলিম সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ইরফানের মা, বেগম তন্ক হাকিম পরিবার থেকে এসেছিলেন এবং তার মরহুম পিতা জাগিরদার তন্ম জেলার বাসিন্দা ছিলেন।
তিনি ১৯৮৪ সালে নয়া দিল্লির ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামা (এনএসডি) থেকে স্কলারশিপ অর্জন করেন, যদিও তিনি তখন তার এমএ ডিগ্রীর জন্য অধ্যয়নরত ছিলেন। স্ত্রী সুতপা সিকদার’র সাথে ১৯৯৫ সালে গাঁটছড়া বাঁধেন এই অভিনেতা। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি দুই সন্তানের জনক তিনি।
এই ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেতা বলিউড, ব্রিটিশ ভারতীয়, হলিউড এবং তেলেগু ছবিতে কাজের জন্য বিশেষ ভাবে পরিচিতি লাভ করেন। অভিনয় করেন বাংলাদেশের ছবিতেও। তিনি ২০১২ সালের মার্কিন চলচ্চিত্র “অ্যামেজিং স্পাইডার ম্যান ” এ অভিনয় করে প্রশংসা অর্জন করেন। এছাড়া তিনি হলিউডের সিনেমা জুরাসিক ওয়ার্ল্ড এ অভিনয় করেন।
শক্তিমান এই অভিনেতা ২০১১ সালে পদ্মশ্রী পুরস্কারে ভূষিত হন। এছাড়া জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০১২ সালে। সেরা অভিনেতা হিসেবে পান সিং তমর ফিল্মফেয়ার পুরস্কার। একাধারে অর্জন করেন ২০০৩,২০০৭ ও ২০১২ সালের সেরা অভিনেতা পুরস্কার।
অনুরাগীদের উদ্দেশে বুধবার টুইটারে ইরফান লেখেন, “জীবনে জয়ী হওয়ার সাধনায় মাঝে মধ্যে ভালবাসার গুরুত্ব ভুলে যাই আমরা। তবে দুর্বল সময় আমাদের তা মনে করিয়ে দেয়। জীবনের পরবর্তী ধাপে পা রাখার আগে তাই খানিক ক্ষণ থমকে দাঁড়াতে চাই আমি। অফুরন্ত ভালবাসা দেওয়ার জন্য এবং পাশে থাকার জন্য আপনাদের সকলকে কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই। আপনাদের এই ভালবাসাই আমার যন্ত্রণায় প্রলেপ দিয়েছে। তাই ফের আপনাদের কাছেই ফিরছি। অন্তর থেকে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি সকলকে”।
ফিরে এসেছিলেন ইরফান। তাঁর শেষ মুক্তি পাওয়া ছবি ‘আংরেজি মিডিয়াম’ লকডাউনের কারণে থিয়েটার রিলিজ হয়নি। উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে বাংলাদেশের খ্যাতিমান চলচ্চিত্র নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী পরিচালিত চলচ্চিত্র ” ডুব ” এ অভিনয় করে এপার বাংলার দর্শকদের মন কেড়ে নেন এ ক্ষণজন্মা শিল্পী। অথচ এমনটি কথাছিলনা। কিন্ত মৃত্যু কেড়ে নিল সব। দুই ছেলে আর আর স্ত্রীকে রেখে ইরফান পাড়ি দিলেন অন্য এক নতুন দুনিয়ায়।

এটি পড়ে দেখতে পারেন

নিবন্ধ-ঃ সবুজ মোদের প্রাণ ========== গোপা ব্যনার্জী।

আজ ৫ জুন বিশ্ব পরিবেশ দিবস। সেদিন ট্রেনে যাচ্ছিলাম। আমি যেখানে বসে ছিলাম ঠিক তার …