শনিবার , এপ্রিল ১৩ ২০২৪
শিরোনাম
Home / বিনোদন-সংস্কৃতি / আসছে বিন্দু মিডিয়ার প্রযোজনায় নারী দিবসের বিশেষ নাটক ম-তে-মা

আসছে বিন্দু মিডিয়ার প্রযোজনায় নারী দিবসের বিশেষ নাটক ম-তে-মা

অনিন্দ্য নয়ন।জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক।চট্টবাংলা ডট কমঃ মা। খুব ছোট একটি শব্দ। যার ছায়ায় রচিত হয় একটি দেবশিশুর পুরো পৃথিবী। মায়ের গন্ধ গায়ে মেখে খেলে ধুলে বেড়ে উঠে একটি শিশু। বাড়ে সময়, বাড়তে থাকে তার জানার পরিবেশ। তবু মাকে ঘিরেই যেন রচিত হয় তার পৃথিবী। কিন্তু আকস্মিক এক দুর্ঘটনায় মারা যায় মা। অন্ধকার নেমে আসে ছোট্ট শিশু সাফায়েত এর জীবনে।

একমাত্র সন্তানকে নিয়ে সুখের সংসার ছিল শাহেদ আর শাহানা দম্পতির। কিন্তু একটি ঝড় যেন সব লন্ডভন্ড করে দিল। মা কে হারিয়ে নির্বাক হয়ে যায় শাফায়েত। মাকেই খুঁজে ফিরে সে।

মায়ের জন্য সন্তানের এই ব্যকুলতা দেখে চিন্তিত হয়ে পড়ে শাহেদ। মায়ের অভাব পুরণ করতে সকলের পরামর্শে দ্বিতীয় বিয়েতে রাজী হয় শাহেদ।

কিন্তু বিধিবাম। নতুন মাকে নিজের মায়ের আসনে স্থান দিতে পারে না ছোট্ট শাফায়েত। অবুঝ মনের কল্পনায় নিজের মাকে খুঁজে ফিরে সে। নতুন মায়ের উপস্থিতি তার কাছে বিরক্তকর বলে মনে হয়। প্রকাশ্যে বিরক্তি প্রকাশ করতে থাকে নতুন মায়ের উপর ।

নতুন মা যতই তাকে আপন করে নিতে চায় ঠিক ততটাই যেন বিরুপ প্রভাব পড়তে থাকে ওর ছোট্ট মনের উপর।

পরিস্থিতি বুঝতে পেরে সমাধানে এগিয়ে আসে পরিবারের প্রবীণ সদস্য শাহেদের বাবা শফিক সাহেব। বাস্তবিক জ্ঞানের আলোকে নাতিকে বাস্তবতা বুঝাতে এক বিকেলে দুজনে বেড়াতে নিয়ে যায় তাঁর প্রাক্তন ছাত্র আরিফের বাসায়।

আরিফ আর নাহিদা দম্পতি সন্তান স্নেহে লালন পালন করেন পরীকে। যাকে তারা এতিমখানা থেকে দত্তক নেন। অবশেষে যাপিত জীবনের অভিজ্ঞতায় শফিক সাহেব সক্ষম হন নাতিকে বাস্তবতা বুঝাতে।

ছোট্ট শাফায়েত তার ভুল বুঝতে পারে। বুঝতে পারে মায়ের অবস্থান সন্তানের জন্য কতটুকু প্রয়োজন। বাসায় এসে নতুন মাকে জড়িয়ে ধরে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে সে। রচিত হয় মা আর সন্তানের চিরন্তন আনন্দধাম। সংসারে নীরবে চলতে থাকা স্নায়ু যন্ত্রণায় ফিরে আসে স্বর্গীয় সুখ।

কবি, গল্পকার ও সংবাদকর্মী সবুজ অরণ্য’র পরিচালনায় নির্মিত নাটকটির রচনা, চিত্রনাট্য ও প্রধান সহকারী পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন আহমেদ কামাল আফতাব।

বিন্দু মিডিয়ার প্রয়োজনায় নগরীর বিভিন্ন লোকেশনে শেষ হয়েছে নাটকের চিত্রায়ণ।

চিত্র ধারণ ও সম্পাদনায় ছিলেন প্রান্ত শর্মা।

নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে টুটুল গাঙ্গুলি, রনি কান্তি দেব, তপতী মজুমদার, জলি দাশ, আদিত্য ভদ্র অনুরাগ, জাহেদুল আলম, পুস্পিতা ধর তাথৈ ও শিশু শিল্পী ঐন্তিকা দে অভিনয় করেছেন।

নাটকটি নির্মানে সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন লালন দাশ, প্রীতি কণা দাশ, অনন্যা অর্পিতা, কাকলি দাশ, সঞ্জিব দাশ, মোহাম্মদ ফয়সাল।

প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান বিন্দু মিডিয়া সূত্রে জানা যায় নাটকটির চিত্রায়ণ প্রায় শেষ। সংগীত সংযোজন আর সম্পাদনা শেষে ইউটিউব চ্যানেল বিন্দুতে নাটকটি প্রচারিত হবে।

এটি পড়ে দেখতে পারেন

প্রখ্যাত ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেত্রী নূতন’র ৮৪তম জন্ম দিন আজ ========= অনন্যা অর্পিতা। চট্টবাংলা। বিনোদন প্রতিবেদক

এই বিখ‍্যাত এ-অভিনেত্রীর পুরো নাম নূতন সমর্থ বাল। ১৯৩৬ সালের আজকের এইদিনে (৪ জুন) তত্‍কালীন …